সংবাদ

বিচ্ছুরণ গ্র্যান্ড ফাইনালে সেরা সাতে ডুয়েটের ‘দ্য অ্যালকেমিস্ট’

স্মার্ট পাওয়ার এবং এনার্জিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় জানালো বিচ্ছুরণের বিজয়ী ৭ দল। তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা; বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পাওয়ার সেল এবং গ্রিন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কম্পানির উদ্যোগে উদ্ভাবনী আইডিয়া প্রতিযোগিতা ‘বিচ্ছুরণ’-এর বিজয়ী ৭ দলের হাতে প্রাইজমানি ৫ লাখ টাকা এবং শীর্ষ বাছাই ২৩ দলের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেয় আয়োজকরা।

শনিবার (৯ ডিসেম্বর) শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত বিচ্ছুরণের ফাইনাল পিচিং শেষে বিজয়ী দলসহ শীর্ষ বাছাই দলগুলোর হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

শীর্ষ ২৩ দলের মধ্যে সেরা সাত দলে অবস্থান করে নেয় ডুয়েটের “দ্য অ্যালকেমিস্ট”। যার নেতৃত্বে ছিলেন ডুয়েটের ক্যামিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মো. রিফাত খন্দকার।

তিনি জানান, আমাদের আইডিয়া ছিল- সমুদ্রের পানি ,পাট অথবা পরিত্যক্ত প্লাস্টিক ইউজ করে সোডিয়াম আয়ন ব্যাটারি তৈরি করা যা অতি সহজলভ্য এবং এই ব্যাটারি পরিবেশ এর কোনো ক্ষতি করবে না।

অনুষ্ঠানে ফাইনাল পিচিং-এর বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ডুয়েটের কম্পিউটার সাইন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ আবুল কাশেম, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক নার্গিস আক্তার এবং গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কম্পানি লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর এবং হেড অব ডিজিটাল বিজনেস মো. মনিরুজ্জামান খান।

বিজয়ী ও শীর্ষ বাছাই দলগুলোর হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এবং সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ট্রাস্টি নসরুল হামিদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন- গ্রীন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ফারজানা চৌধুরী, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পাওয়ার সেল বিভাগের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন এবং শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া।

প্রতিযোগিতার বিজয়ী দলগুলোর হাতে প্রাইজমানি ও ক্রেস্ট প্রদানের পর নসরুল হামিদ সকল তরুণকে উদ্ভাবনী কার্যক্রমে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

এবারের বিজয়ী দলগুলো হলো
বিডি হাইওয়ে ট্রিবিউন:
সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসসি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল আরাফের নেতৃত্বে কাজ করছে বিডি হাইওয়ে ট্রিবিউন। প্রটোটাইপ যন্ত্র নিয়ে বিচ্ছুরণের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে তারা।

দ্য অ্যালকেমিস্ট: মো. রিফাত খন্দকার ডুয়েট ক্যামিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী।

সোল-কিল: খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি শেষ করেছেন সোল-কিলের উদ্যোক্তা সুমাইয়া আফরোজা। বর্তমানে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সহকারী প্রোগ্রামার হিসেবে কাজ করছেন তিনি।

স্মার্ট পাওয়ার প্রোডাকশন উইথ এ স্মার্ট ডাস্টবিন ফর স্মার্ট সিটি: খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যায় থেকে বিএসসি শেষ করে খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন তন্ময় বকশি।

টিম এপলোগ: ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির সিভিল অ্যান্ড এনভারমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী জেফরিন রহমান নাহিনের নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে টিম এপলোগ।

ডেভলোপমেন্ট অ্যান্ড অপটিমাইজেশন অব এ গ্রাভেটি পাওয়ারড ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেটর ইউজিং নিওডায়মিয়াম ম্যাগনেট কয়েল পাথ ওয়েস: ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড রিসার্চ (এনআইটিইআর) এর ট্রিপলি (ইইই) বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. রবিউল আলম নেতৃত্ব দিচ্ছেন এই আইডিয়ার।

এনার্জি চেইন: ব্লক চেইন সলুশ্যান ফর পিটুপি এনার্জি ট্রেডিং ইউজিং লাইটওয়েট কনসেন্সাস মেকানিজম’: ইউল্যাব সিএসসি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সাখোয়াত হোসেনের নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে ‘এনার্জি চেইন’।

Diploma News

কারিগরি ও ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের সেরা পোর্টাল DIPLOMA NEWS

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button